Dhaka Reader
Nationwide Bangla News Portal

- Advertisement -

কানাডায় সিলেট অ্যাসোসিয়েশনের বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত

191

কানাডার ক্যালগেরিতে সিলেট অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগরির আয়োজনে বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় সময় শনিবার (২৯ জুলাই) স্টেটমোড় শহরের সন্নিকটে কিন্সমেন পার্কের সবুজ বনায়নে দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠান হয়।

কর্মব্যস্ত জীবনের ফাঁকে গ্রীষ্মের মনোরম আবহাওয়ায় শিশু, কিশোর, তরুণ-তরুণী আর বয়োবৃদ্ধসহ সর্বস্তরের প্রবাসী বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণে এ যেন ছিল এক আবেগঘন আনন্দ আয়োজন। অনুষ্ঠানে শিশু, কিশোর, পুরুষ ও নারীদের বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ গ্রহণের পাশাপাশি কমিউনিটির সকলে দলে দলে আড্ডা আর গল্পে মুখরিত হয়ে উঠেছিল সবুজ শ্যামল বনায়নে পরিবেষ্টিত বিশালাকার পিকনিক স্পট। সকালের নাস্তা, মধ্যাহ্নভোজ আর ডিনারের মাধ্যমে দিনব্যাপী আয়োজনে কারো যেন কোনো ক্লান্তি ছিল না।

খাদ্য ব্যবস্থাপনায় নিয়োজিত কিরণ বণিক শংকর তার আবেগ অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, এ দিনটি আমার জন্য ভীষণ আনন্দের। কদিন টানা পরিশ্রমের পরও ক্লান্তি আমায় ছুঁতে পারেনি। সব প্রিয়জনদের এই মিলনমেলায় আমি আমার মাটি, বাঙালির সমাজ, সংস্কৃতি আর তার গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহ্যকে খুঁজে পাই।

- Advertisement -

সিলেট অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বিসিএওসির সভাপতি কায়েস চৌধুরী বলেন, নতুন প্রজন্মকে আমাদের সংস্কৃতির সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে এটি আমাদের ধারাবাহিক প্রচেষ্টা।

বিশাল আয়োজনের এই অনুষ্ঠান সফল করে তোলার জন্য তিনি কমিউনিটির সকল সদস্যদের প্রতি তিনি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বিসিএওসির সাধারণ সম্পাদক শুভ্র দাস বলেন, সিলেটের মাটি ও মানুষের সঙ্গে আমার সম্পর্ক রক্তের, আমার সম্পর্ক ভালোবাসার।

সব বয়সের অংশগ্রহণকারীদের জন্য বিভিন্ন রকম খেলাধুলার পাশাপাশি, ভাওয়ালী, ভাটিয়ালিসহ সিলেট অঞ্চলের নানা রকম নাচ, গান আর সংগীতে মুগ্ধ হয়ে ক্যালগেরির প্রবাসী বাংলাদেশিরা যেন তাদের প্রিয় মাতৃভূমি সিলেটের মাটিতেই ফিরে গিয়েছিল।

বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী গুরুপ্রসাদ হুম চৌধুরী, চেরী শাহেদ আর শিশু শিল্পীদের নাচ গান অনুষ্ঠানে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছিল। সেই সাথে অ্যাসোসিয়েশনের এক ঝাঁক তরুণ-তরুণীর অংশগ্রহণে, পূর্বাশা চৌধুরী ও তন্ময় তালুকদার এবং তাদের সুদক্ষ টিমের পরিকল্পনায় সিলেটি দামাইলের সাথে নাচে গানে সরগরম হয়ে উঠেছিল কিন্সম্যান পার্কের বিশাল এলাকা।

পিকনিকের আনন্দ আয়োজনের পাশাপাশি অ্যাসোসিয়েশন তিনজন কৃতি সিলেটিদের হাতে স্মারক সম্মাননা তুলে দেওয়া হয়। প্রকৌশলী মোহাম্মদ কাদির আলবার্টা প্রফেশনাল ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যান্ড জিও সাইন্টিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের ক্যালগেরি চ্যাপ্টারের চেয়ার নির্বাচিত হওয়ায় তার হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন বাংলাদেশ সরকারের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিলেটের কৃতি সন্তান শাফি মাহমুদ।

কমিউনিটি সেবায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে কুইন এলিজাবেথ অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তিতে জুবায়ের সিদ্দিকীর হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন নিউইয়র্কে স্থায়ীভাবে বসবাসকারী প্রবীণ কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব, শিক্ষানুরাগী ও বাংলাদেশের স্থানীয় সরকারের সাবেক প্রতিনিধি সবুতারা বেগম।

বাংলাদেশ কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগেরির সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় কয়েস চৌধুরীর হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন হবিগঞ্জের প্রবীণ ব্যক্তিত্ব সাবেক ব্যাংকার সূধাময় চৌধুরী।

অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রূপক দত্ত ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান দীপু ক্যালগেরি প্রবাসী সব সিলেটিদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বনভোজনের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.